পিঠা তৈরি

৳ 50

Category:

Description

পিঠা খেতে কে না ভালবাসে? বাঙালি ঐতিহ্যের এক বড় অংশ জুড়ে আছে এ পিঠা। বিশেষ করে বাংলাদেশের গ্রামের দিকে এ ঐতিহ্য এখনও অনেকাংশেই টিকে আছে। শীতকালে বাংলাদেশে পিঠা-পুলি খাওয়ার ধুম পড়ে যায়। আবাল-বৃদ্ধ-বণিতা সবার প্রিয় খাবার এ পিঠা। পিঠার আবার বিভিন্ন রকম স্বাদ থাকে। কোন পিঠা মিষ্টি, কোনটিবা ঝাল আবার কোন কোন পিঠা টকও হয়ে থাকে।

পিঠা-পুলি বাঙালির আদি খাদ্যসংস্কৃতির অংশ। বাংলার চিরায়ত লোকজ খাদ্যসংস্কৃতিতে পিঠা-পায়েস একটি বিশেষ স্থান দখল করে আছে। প্রতিবছরই শীতকালে দেশজুড়ে পিঠা তৈরির ব্যস্ততা চোখে পড়ে। বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলে বাড়িতে বাড়িতে ধুম পড়ে যায় পিঠা বানানোর। কুয়াশাচ্ছন্ন ভোর বা সন্ধ্যায় গাঁয়ের বধূরা চুলোর পাশে বসে পিঠা তৈরিতে কাটান ব্যস্ত সময়। অতিথি বিশেষ করে জামাইদের দাওয়াত করে পিঠা খাওয়ানো হয়।

গ্রামের পাশাপাশি শহরেও পাওয়া যায় শীতের পিঠার সুবাস। রাস্তায় রাস্তায় পিঠা বানিয়ে বিক্রি করেন বিক্রেতারা। তবে ইদানীং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান কর্তৃক আয়োজিত শীতের পিঠা উৎসব সাড়া ফেলে দেয় শহুরে জীবন। শতাধিক ধরনের পিঠার প্রচলন রয়েছে বাংলাদেশে। গ্রামাঞ্চলে শীতের পিঠা তৈরিকে যেমন উত্‍সব হিসেবে গণ্য করা হয় সে তুলনায় শহরে খুব কমই চোখে পড়ে পিঠা-পুলির বাহার। তবে ইদানীং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান কর্তৃক আয়োজিত শীতের পিঠা উত্‍সব সাড়া ফেলে দেয় শহুরে জীবন। বর্তমানে প্রধানত শহর এলাকায় কেক, পেস্ট্রি ও বাণিজ্যিকভাবে প্রস্ত্ততকৃত অন্যান্য খাবার ঐতিহ্যবাহী ঘরে তৈরি পিঠার স্থান দখল করে নিয়েছে। রাস্তার ধারে ক্ষুদে দোকানিরা পিঠা বিক্রয় করে জীবিকা নির্বাহ করে।

সুতরাং ঐতিহ্যের পাশাপাশি পিঠার রয়েছে ব্যবসায়িক ভাবে কাজে লাগানোর সুযোগ । তাই বিষয় হিসাবে আপনি বেছে নিতে পারেন পিঠা বানানো । ঘরে বসে দুর-শিক্ষনের মাধ্যমে ঐক্য এসএমই ডিজিটাল ইন্সটিটিউট থেকে শিখুন পিঠা বানানোর বিভিন্ন দিক । ব্যবসা হিসাবে শুধু পিঠা বানিয়ে শুরু করতে পারেন আপনার ব্যবসা । ঘরে বসেই হয়ে হয়ে উঠুন একজন উদ্দ্যোগতা ।